Bounce Rate কি? আর এটি কিভাবে কাজ করে?

আপনারা কি জানেন Bounce Rate কি আর এটি কিভাবে কাজ করে যদি আপনারা না জেনে থাকেন তাহলে মন খারাপ করবেন না আজ আমি আপনাদের এই সম্বন্ধে ভালোভাবে জানাবো যদি আপনাদের নিজস্ব ব্লগ বা ওয়েবসাইট থাকে তাহলে আপনারা Bounce Rate এর সম্বন্ধে কিছুটা হলেও জেনে থাকবেন যদি আপনারা সর্বদায় alexa তে আপনার ব্লগের Global Rank, India Rank, পেজে কত ভিজিটর এইসব জড়িত চেক করেন তাহলে তো আপনারা এর সাথে সাথে Bounce Rate কেউ অবশ্যই দেখে থাকবেন কিন্তু একজন ব্লগারের তখন খারাপ লাগে যখন আপনার সাইটের bounce rate average এর থেকে বেশি হয়ে যায় এর ফলে তার ব্লগের অথরিটি আর রেঙ্ক নিজে থেকেই কমতে থাকে

কারণ যেকোন সাইটের bounce rate বেশি হওয়ার অর্থ হলো সেই সাইটটি ইউজারদের জন্য ভালো নয় আর যদি আপনার সাইটটি ওই ক্যাটাগরি এর মধ্যে পড়ে তাহলে এটি আপনার ওয়েবসাইটের জন্য একটি খারাপ সংবাদযদি আপনার ব্লগ বা ওয়েব সাইটটি নতুন হয় তাহলে bounce rate বেশি হওয়া একটি সাধারন ব্যাপার কিন্তু যদি আপনার সাইটটি পুরনো হয় আর তার bounce rate যদি বেশি হয় তাহলে কোথাও না কোথাও এতে আপনার ভুল থেকে থাকে

কিন্তু চিন্তা করার কোন প্রয়োজন নেই আজকের এই আর্টিকেলটি পড়ার পর আপনার সাইটের bounce rate অবশ্যই কম হয়ে যাবে অর্থাৎ আজকে আমি আপনাদের এমন কিছু তথ্য প্রদান করবো যার সাহায্যে আপনারা খুব ভালোভাবেই সেটি বুঝতে পারবেন আর সাথে আপনাকে এই পুরো আর্টিকেলটি অবশ্যই পড়তে হবে কারণ শেষে আজ আমি আপনাদের এমন কিছু টিপস দেব যেটি পরবর্তীকালে আপনার সাইটের জন্য অনেক কাজের হবে তাহলে চলুন দেরি না করে আমরা জেনে নিই Bounce Rate কি?

 

Bounce Rate কি?

Bounce Rate কি? আর এটি কিভাবে কাজ করে

যদি আপনি আপনার ব্লগ বা সাইটের সার্চ পারফরম্যান্স বাড়ানোর জন্য চেষ্টা করছেন আর সেটি হচ্ছে না তাহলে এর পিছনে লুকিয়ে থাকা কিছু রহস্য আছে সর্বপ্রথম Bounce Rate কম করুন কিন্তু এর মধ্যে আপনার কিছু ভুল রয়েছে কি ভুল হয়েছে সেই বিষয়ে আগে আমরা কথা বলবো Bounce Rate কি, যখন একজন ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইটে আসে আর একটি পেজ অর্থাৎ entrance পেজটিকে ভিজিট করে আর সে যখন আপনার সাইট থেকে বেরিয়ে চলে যায় তখন সেটিকে Bounce বলা কিন্তু Bounce Rate এর অর্থ হলো সেই ভিজিটরদের পার্সেন্টেজ যারা আপনার পেজটিতে আছে আর অন্য কোন পেজে ক্লিক না করে চলে যায়

এর অর্থ হলো ভিজিটর আসছে আর সঙ্গে সঙ্গে ব্যাক করে চলে যাচ্ছে অন্য কোন পেজ না খুলেই আপনার আর্টিকেলটিকে না পড়ে যদি এরকম হয়ে থাকে তাহলে এটি প্রমাণ হয় যে আপনার সাইটের পোস্ট এতটা ইন্টারেস্টিং নয় অথবা আপনি আপনার পোষ্টের মধ্যে বেশি ভ্যালু এড করছেন না এছাড়া এটাও হতে পারে এটার ডিজাইন খুব একটা ভালো না, হেডিং এট্রাক্টিভ নয় যদি বাউন্স রেট বেশি হয় তাহলে আপনি বুঝে যাবেন আপনার সাইটের ভিজিটর কমতে থাকছে আর যদি ভিজিটর কম হয়ে যায় তাহলে রেঙ্ক কড়াই সমস্যা হবে আর ইনকাম কম হবে চলুন তাহলে আপনাদের একটি উদাহরণের মাধ্যমে বুঝিয়ে দিই bounce rate কি?

যদি একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগের bounce rate যদি 45% হয় এর অর্থ হলো ওই ওয়েবসাইটে 45% ভিজিটর এমন আছে যারা একটি পেজ খুলে আবার সঙ্গে সঙ্গে তারা ব্যাক করে চলে যায় হয়তো এরকম হতে পারে তাদের পড়ার জন্য এমন কোন কিছু হয়তো তারা পাননি এরকম হওয়ার অনেক কারণ থাকতে পারে যেগুলো আমরা পরে জানব তাহলে চলুন আমরা জেনে নেই bounce rate কত হলে সবথেকে ভালো হয় একটি সাইটের জন্য

Bounce Rate কত হওয়া দরকার?

আশা করি আপনারা এতক্ষণে কিছুটা হলেও বুঝতে পেরেছেন bounce rate কি এবার আমি আপনাদের বলবো একটি ওয়েবসাইটের bouce rate কত হলে ভাল কত পর্যন্ত হলে ঠিক আছে আর আপনার সাইটের জন্য কতটা পর্যন্ত বেকার হয় এটিকে সঠিক ভাবে বোঝানোর জন্য আমি আপনাদের নিচে পরিমাণ অনুসারে দিয়ে দিয়েছি 

  1. 1% থেকে 10%
  2. 10% থেকে 40%
  3. 40% থেকে 70%
  4. 70% থেকে বেশি

যেকোনো ব্লগের Bouce Rate যদি 1% থেকে 10%এর মধ্যে হয় তাহলে সেটি পৃথিবীর মধ্যে সাফল্যতম ওয়েবসাইটের লিস্টে আসে এরপর যদি কোন ওয়েবসাইটের Bounce Rate 10% থেকে 40% এর মধ্যে হয় তাহলেও সেটি ভালো আর সেই খানে তৃতীয় অর্থাৎ যে সমস্ত ওয়েবসাইটের Bounce Rate 40% থেকে 70% এর মধ্যে হয় তাহলে এগুলি সাধারণত বেশিরভাগ ওয়েবসাইটি শামিল হয় এগুলি এতটা ভালো না হলেও কাজ চলে যাওয়ার মত যদি আমরা সমস্ত ওয়েবসাইটের কথা বলি তাহলে মোট 70% থেকে 80% ওয়েবসাইট এই সমস্ত ক্যাটাগরি এর মধ্যে পড়ে আজ সর্বশেষে যে সমস্ত ওয়েবসাইটের bounce rate 70% থেকে বেশি হয় সেগুলি একদমই ভালো নয় আর তাদের উচিত তাদের নিজের ওয়েবসাইটের উপর কাজ করা এরপর চলুন আমরা জেনে নিই কোন কোন ভুল কাজের ফলে bounce rate বেশি হয়

যদি আপনারা ভাবছেন সমস্ত প্রকার ওয়েবসাইটের bounce rate এক রকমের হয় তাহলে এর উত্তর হবে না বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইটের bounce rate বিভিন্ন হয় আমি নিচে আপনাদের কিছু উদাহরণ স্বরূপ দেখিয়ে দিয়েছি যেগুলি দেখে আপনারা কিছুটা আন্দাজ করতে পারবেন

  • কনটেন্ট ওয়েবসাইট – 40-60%
  • Lead generate করা ওয়েবসাইট – 30-50%
  • ব্লগ – 70-98%
  • Retail ক্যাটাগরি এর ওয়েবসাইট – 20-40%
  • Services Provide ওয়েবসাইট – 10-30%
  • ল্যান্ডিং পেজ – 70-90%

 

কোন কোন ভুলের কারণে ওয়েবসাইট বা ব্লগের Bounce Rate বেড়ে যায়?

নিচে দেওয়া কতকগুলো ভুলের বিবরণ দেওয়া হলো যেগুলি একজন ব্লগার সাধারণত করে থাকেন যেগুলি আপনাদের অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে

  1. ওয়েবসাইটের লোডিং টাইম বেশি হওয়া
  2. Single page সাইট হওয়া
  3. খারাপ কোয়ালিটি কনটেন্ট এর থাকা
  4. Internal link ভিজিটরদের পছন্দ হওয়া প্রয়োজন
  5. ট্রাফিকের জন্য ভুল কিওয়ার্ড এর রেংক হওয়া
  6. কোয়ালিটি আর ইউজারদের পছন্দমত কনটেন্ট না থাকা
  7. আপনার ওয়েবসাইটের ডিজাইন বেকার হওয়া
  8. আপনার ওয়েবসাইট এর হেডিং ভালো না হওয়ার কারণে

 

Bounce Rate কিভাবে কম করব?

তাহলে বন্ধুরা এরপর আমি আপনাদের বলব কোন কোন পদ্ধতিতে আপনি Bounce Rate কম করতে পারবেন

  • সাইট ডিজাইন আর লুক ভালো হওয়া প্রয়োজন

দেখুন বন্ধুরা আপনাদের কাছে যে জিনিসটা দেখতে ভালো লাগে আমরা সেই দিকেই আকর্ষিত হয়ে যায় ঠিক সেই ভাবে যদি আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগটি দেখতে ভালো লাগে তাহলে ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইট এর দিকে আপনা আপনি আসবে আর তাদের কনটেন্ট পড়তেও ভাল লাগবে যখনই আপনি আপনার ব্লগটিকে ডিজাইন করবেন তখন আপনার কালার কম্বিনেশন এর জ্ঞান থাকা খুবই দরকার আপনাকে আপনার ভিজিটরদের বুঝতে হবে যেকোন রংটি সাইটের জন্য ভালো হবে 

  • পেজ লোড টাইম এর ওপর খেয়াল রাখুন

যদি আপনার সাইটের পেজ লোড টাইম বেশি হয় তাহলে এর অর্থ হল আপনার ব্লগে আসা ভিজিটরদের প্রথমেই আসতে মানা করে দেওয়া যদি আপনি একজন ব্লগার হন তাহলে এটির ওপর অবশ্যই নজর দিন আর SEO এর জন্য এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ যদি আপনার সাইটের পেজ লোড টাইম

  • 1 সেকেন্ডের কম অর্থাৎ – Perfect
  • 1 সেকেন্ড থেকে 3 সেকেন্ড অর্থাৎ – Above Average
  • 3 সেকেন্ড থেকে 7 সেকেন্ড অর্থাৎ – Average
  • 7 সেকেন্ড থেকে বেশি অর্থাৎ – Very poor

যদি আপনি আপনার ভিজিটরদের খুশি করতে চান তাহলে আপনার সাইটের লোডিং স্পিড Perfect অথবা Above Average হতে হবে পেজে কম ইমেজ আর কম size এর ইমেজ ব্যবহার করুন এর ফলে পেজ লোড টাইম কম হবে

  • কোয়ালিটি কনটেন্ট লিখুন

 যদি আপনার সাইটে কোয়ালিটি কনটেন্ট থাকে তাহলে আপনার সাইটটিকে ব্র্যান্ড বানাতে খুব সুবিধা হবে যদি আপনি আপনার সাইটে ব্র্যান্ডেড আর ভ্যালুয়েবল কনটেন্ট এর প্রতি বেশি নজর দেন তাহলে আপনার হয়তো কিছু সময় লাগতে পারে কিন্তু আপনি আপনার লক্ষ্য তে খুব শীঘ্রই পৌঁছে যাবেন যদি কনটেন্ট কোয়ালিটি পূর্ণ না হয় তাহলে ভিজিটর আপনার সাইট থেকে ব্যাক চলে যাবে কারণ এরকম অনেক ওয়েবসাইট আছে যারা আপনার ওয়েবসাইটের তুলনায় অনেক ভাল কনটেন্ট প্রদান করেন যেমন ধরুন আপনি যদি কনটেন্ট লিখছেন আর সেখানে সঠিক ইনফরমেশন দিচ্ছেন না আপনার মনে যেটি আছে সেটি লিখছেন এর ফলে আপনার সাইট এর ব্যাংক কমে যাবে এই জন্য যেটি সঠিক সেটি লিখুন

যদি আপনি ফুল ইনফরমেশন দিয়ে থাকেন আপনার সাইডে তাহলে ইউজার অর্থাৎ ভিজিটর আপনার আর্টিকেলটি পড়ে ভুল ডিসিশন নিবে যেটি খারাপ রেজাল্ট নিয়ে যাবে এই কথাটি অবশ্যই খেয়াল রাখবেন কনটেন্ট এর সাইজ 500 থেকে 1000 words এর মধ্যে রাখবেন আর সহজ ভাষার ব্যবহার করবেন যার ফলে ভিজিটর খুব সহজেই বুঝতে পারে আপনি কি লিখেছেন আর আপনার সাইটের উপর ভরসা বাড়বে বন্ধুরা যদি আপনি কোয়ালিটি কনটেন্ট প্রোভাইড করেন হয়তো বেশি সময় লাগতে পারে কিন্তু ভিজিটর ভালো পরিমাণে আসবে আর আপনার সাইটের Bounce Rate কমে যাবে

  • Visitors Friendly Heading দিন

বাইরে কিছু আর ভিতরে কিছু এরকম হলে যে কারো খারাপ লাগবে বেশিরভাগ ব্লগার এইধরনের ভুল করেন আর clickbait হেডিং এর ব্যবহার করেন যেটি একদম ঠিক নয় ঠিক এই ধরণের কাজ আমরা যদি আমাদের ব্লগের ক্ষেত্রে করি অর্থাৎ যদি আমরা আমাদের ব্লগ পোষ্ট এর হেডিং ভালো দিআর ভিতরের অন্য কোন টপিকের উপর আর্টিকেল লিখে থাকি তাহলে ভিজিটর দের বিশ্বাস কমে যাবে আপনাদের ওয়েবসাইট এর উপর থেকে আমার বলার অর্থ হলো আপনার পোস্ট এর হেডিং সবারই বোঝার মত হওয়া উচিত আমি আপনাদের নিচে একটি উদাহরণ সহ বুঝিয়ে দিচ্ছি

 যদি একজন ভিজিটর আপনার সাইটে রুপোর আসে আর সে একটি আর্টিকেল কে ভালোভাবে পড়ে আর তারপর সেই ব্যক্তি অন্য কোন আর্টিকেল এর হেডিং পড়ার পর ব্যাক চলে যায় তাহলে কি হবে সেটা অবশ্যই আপনারা জানেন আপনার সাইটের Bounce Rate বেশি হয়ে যাবে আপনার কনটেন্ট যতটা পারেন আপডেটেড রাখুন যার ফলে সঠিক ইনফরমেশন পাই আর ভিজিটর আপনার সাইট এর ওপর বজায় থাকে ভাল কনটেন্ট এর কারণে গুগল এ রেঙ্ক  খুব তাড়াতাড়ি হয়

  • Content Formatng এর ওপর focus করুন

আপনার পেজ অথবা আপনার পোষ্টের ফরমেটিং সঠিকভাবে না করেন তাহলে ভিজিটরদের কিভাবে ভাল লাগবে যখন পোস্টকে এডিট করবেন তখন যে ট্যাগ দেওয়া দরকার সেটির উপর আরো কিছু অ্যাড করুন আর প্যারাগ্রাফ ফরমেটিং এর ওপর focus করুন বেশি লম্বা প্যারাগ্রাফ লিখবেন না যার ফলে ভিজিটর যদি আপনার আর্টিকেলটি পড়ে তাহলে তারা যেন আপনার আর্টিকেলটি পড়ার সময় বোরিং না হয় যে word টিকে bold করা দরকার সেটিকে bold করুন যার ফলে ভিজিটরদের focus বাড়বে তার সাথে Formatted কনটেন্ট পড়তে সবারই ভালো লাগে

  • Internal Link এর ওপর Focus করুন

আপনি আপনার পোস্ট এর মাঝে মাঝে যদি আপনি সঠিক internal link না তাহলে bounce rate বেড়ে যাবে এটা এইজন্য কারণ রিডার্স আপনার কনটেন্ট পড়ার পর চলে যাবে আর যদি আপনি রিলেটেড internal link দেন তাহলে তারা ওই কনটেন্ট পড়ার জন্যও আগ্রহী হবেন তবে একটি কথা আপনি যে সম্বন্ধিত পোস্ট করছেন সেই সম্বন্ধিত internal link দিন যাতে ভিজিটর ওই পোস্টটি পড়ার জন্য আগ্রহ অনুভব করে এটি আপনার উপর নির্ভর করে আপনার সাইটে কি ধরনের কনটেন্ট আছে আর কোন ধরনের internal link দেওয়া সঠিক এই টিপসটি bounce rate কম করার জন্য অনেকখানি সাহায্য করে

  • Mobile Friendly Blog

এটা হয়তো আমরা সবাই জানি আজকাল মোবাইল ইউজার সবথেকে বেশি এইজন্য আমাদের ব্লগটিকে mobile friendly বানানোর দিকে সবথেকে বেশি নজর দিতে হবে আপনার ব্লগটি যত বেশি mobile friendly হবে ততবেশি ভিজিটর আপনার ব্লগটিকে পছন্দ করবে আমার মতে 60% ভিজিটর মোবাইল ইউজার হয় তাই আপনার সাইটে mobile friendly টেমপ্লেট ব্যবহার করুন

 

আমার শেষ কথা

বন্ধুরা আজকের এই তথ্যটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল যদি আপনি ব্লগিং এর দুনিয়াতে নতুন কিছু করতে চান আর উন্নতি করতে চান তাহলে আমি আশা করছি এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য খুবই সাহায্য করে থাকবে আশা করি এরপর আপনারা বুঝতে পেরেছেন Bounce Rate কি? আর Bounce Rate কিভাবে কম করবেন? আমি উপরে যতগুলো পদ্ধতি আপনাদের দিয়েছি সেইগুলি খেয়াল রেখে আপনারা আপনাদের ব্লগিং জার্নিকে আগে নিয়ে যেতে পারবেন যদি আপনাদের মনে কোন ধরনের প্রশ্ন থেকে থাকে আর আপনারা সেটি জিজ্ঞাসা করতে চান তাহলে আপনারা নিচে দেওয়া কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে অবশ্যই জিজ্ঞাসা করতে পারেন

আমি আপনাদের উত্তর দেওয়ার যথাযথ চেষ্টা করব আপনারা যদি এখনও পর্যন্ত এই ব্লগ টি কে ফলো করে না থাকেন তাহলে অবশ্যই ফলো করুন আর যদি আপনারা এই সম্বন্ধিত আরও কোন তথ্য পেতে চান তাহলে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম এ ফলো করুন এবং আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে আমার পাশে থাকুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Scroll to Top
Copy link