ওয়েব হোস্টিং কি? ওয়েব হোস্টিং এর প্রকার এবং কেনার সঠিক নিয়ম

ওয়েব হোস্টিং কি: এটি জানা যেকোনো begginer এর জন্য খুবই জরুরী যাতে সে তার ব্লগের জন্য একটি ভালো ওয়েব হোস্টিং কিনতে পারে

কারণ যদি আপনার ওয়েবসাইট কোন ভালো ওয়েব হোস্টিং দ্বারা হোস্ট না হয় তাহলে ভবিষ্যতে আপনাকে অনেক কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হবে যেমন আপনার ব্লগের লোডিং স্পীড স্লো হয়ে যাবে আর আপনার ওয়েবপেজ বা পোস্ট সঠিকভাবে ইউজারদের সামনে ডিসপ্লে হবে না এর ফলে আপনার ব্লগের বাউন্স রেট অনেক বেশি ইনক্রিজ হয়ে যাবে আর আপনার রেংকিং সার্চ ইঞ্জিনে নিচে নামতে থাকবে

এই জন্য আজকের এই পোস্টে আমরা আপনাদের ওয়েব হোস্টিং কি এই সম্বন্ধে সম্পূর্ণ তথ্য প্রদান করব

 

ওয়েব হোস্টিং কি?

ওয়েব হোস্টিং কি? ওয়েব হোস্টিং এর প্রকার এবং কেনার সঠিক নিয়ম

ওয়েব হোস্টিং এক প্রকারের সার্ভিস যে কোনো ব্যক্তি বা অর্গানাইজেশন এর ওয়েবসাইটকে ইন্টারনেটে accessible বানায়

ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস প্রোভাইডার যেকোনো ওয়েবসাইটের জন্য জরুরী টেকনিক আর সার্ভিস প্রদান করে যাতে ইউজারদের ইন্টারনেটে ওয়েবসাইটকে ভালোভাবে visible করতে পারে

আপনি যত সমস্ত ওয়েবসাইট দেখে থাকবেন সেগুলো কোন না কোন সার্ভারে host হয়

অর্থাৎ সেই সমস্ত ওয়েবসাইটের ডাটা যেমন ফটো, টেক্সট আর ভিডিও ইত্যাদি সব একটি সার্ভারে স্টোর থাকে যেটিকে ওয়েব সার্ভার বলা হয় এটি একটি বিশেষ প্রকারের কম্পিউটার আর প্রত্যেক সময় ইন্টারনেট এর সাথে কানেক্টেড থাকে

যখন কোন ওয়েবসাইটের URL ব্রাউজারের টাইপ করে তখন সেই ইউজারের কম্পিউটারে সেই বিশেষ কম্পিউটার বা ওয়েব সার্ভার থেকে কানেক্ট হয়ে যায় আর ওয়েবসাইটের ডাটাকে ওয়েব ব্রাউজারের মাধ্যমে ইউজারদের কাছ পর্যন্ত পৌঁছে দেয়

ওয়েব হোস্টিং কত প্রকারের হয়?

যদিও বন্ধুরা ওয়েব হোস্টিং অনেক প্রকার কিন্তু যে সমস্ত ওয়েব হোস্টিং এর ব্যবহার সবথেকে বেশি হয় সেগুলো সম্বন্ধে আজকে আমরা এই পোষ্টের মাধ্যমে আলোচনা করব যেমন –

  • Shared Web Hosting
  • VPS
  • Dedicated Hosting
  • Cloud Web Hosting

 

Shared Web Hosting

Shared Web Hosting এর সার্ভিস হাজারো ওয়েবসাইটের যে ডাটা হয় সেগুলো কোন একটি সার্ভারে স্টোর হয় এইজন্য এটিকে shared Web Hosting নাম দেওয়া হয়েছে

কারণ অনেক ওয়েবসাইট যখন একটি সার্ভার থেকে কানেক্টেড হয় তখন সেই প্রকারের হোস্টিং এর cost কম হয় আর এই ধরনের হোস্টিং সেই সমস্ত মানুষের জন্য সবথেকে ভালো যারা তাদের নতুন ব্লগ শুরু করেছেন

কারণ যখন আপনারা ব্লগ শুরু করেন তখন আপনার ব্লগে বেশি ভিজিটর আসেনা আর ডাটাও আপনার ওয়েবসাইটের এতটা থাকে না এইজন্য Shared Web Hosting এর ওপর লোড বেশি পড়ে না আর আপনার ওয়েবসাইট smoothly চলতে থাকে

Shared Web Hosting এর সুবিধা

  • এটির দাম খুবই কম এই জন্য এটিকে যে কেউ কিনতে পারে
  • এই প্রকারের হোস্টিং এর সেটআপ করা খুবই সহজ কোন টেকনোলজি জ্ঞান ছড়াও আপনি এটিকে চালাতে পারবেন
  • এই প্রকারের ওয়েব হোস্টিং এর কন্ট্রোল প্যানেল অনেক ইউজার ফ্রেন্ডলি হয় অর্থাৎ যে কেউ খুব সহজেই এটি এর ফানসান কে বুঝতে পারবে
  • এটি সেই সমস্ত মানুষের জন্য খুবই ভালো যারা বেসিক লেভেল এর ওয়েবসাইট বানাতে চান
  • যেকোনো নতুন ব্লগারদের জন্য shared হোস্টিং নেওয়া অনেক বেশি ভালো হতে পারে

Shared Web Hosting এর অসুবিধা

  • বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইটের ডাটা একটি সার্ভারে থাকার কারণে অনেক সময় আপনার ওয়েব সাইট লোড হতে সময় লাগে
  • যখন আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে বেশি ট্রাফিক আসতে থাকে তখন এই প্রকারের হোস্টিং এ আপনার ব্লগের লোডিং টাইম অনেক বেড়ে যায়
  • যদিও এটি অনেক সস্তা ওয়েব হোস্টিং এইজন্য এখানে আপনাকে লিমিটেড রিসোর্সেস অ্যাক্সেস দেওয়া হয়
  • এই ধরনের হোস্টিং আপনার ব্লগের ডাটাকে বেশি সিকিউরিটি দিতে পারেনা
  • সাধারণত দেখা গিয়েছে যত সমস্ত ওয়েব হোস্টিং প্রোভাইডার আছেন তারা এই ধরনের হোস্টিং প্লানে বেশি সাপোর্ট প্রদান করেন না

 

VPS(Virtual Private Server) Hosting

VPS এটিকে আমরা Virtual Private Server বলি এখানে একটি বড় সার্ভারকে আলাদা আলাদা ভাগে ভাগ করে রাখা হয় আর যেভাবে আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের ডাটা স্টোর থাকে সেখানে অন্য কোন ব্লগ বা ওয়েবসাইটের ডাটা স্টোর করা যায় না সেখানে শুধু আপনার অধিকার থাকে

উদাহরণস্বরূপ: যেমন ধরুন আপনি আপনার গ্রামের বাইরে চাকরির জন্য যান আর কোন ভাড়া বাড়িতে থাকেন তাহলে আপনি দেখে থাকবেন সেটি একটি অনেক বড় বাড়ি কিন্তু সেখানে আপনি কোন একটি রুমে থাকেন যেখানে আর কেউ থাকতে পারেনা সবারই আলাদা আলাদা রুম থাকে আর তারা এর জন্য ভাড়া দেয় তাহলে ঠিক সেইভাবে VPS হোস্টিং ও কাজ করে

VPS Hosting এর সুবিধা

  • এই ধরনের হোস্টিং আপনি কারো সাথে শেয়ার করছেন না বরং অনুগ্রহ সার্ভার আলদা আলদা ভাবে ভাগ করে দিয়েছে আর আপনি কোন
  • একটি ভাগ কিনে নিয়েছেন এইজন্য এটির performance অনেক ভালো হবে
  • এই ধরনের হোস্টিং এ আপনি পুরো কন্ট্রোল আপনার হোস্টিং এ পাবেন
  • সব থেকে বড় কথা হল এই প্রকারের হোস্টিংয়ের প্রাইভেসি আর সিকিউরিটি অনেক বেশি ভালো হয়
  • যদি আপনার ওয়েবসাইট আর ব্লগে ট্রাফিক বেশি হয় তাহলে এই হোস্টিং আপনাকে ভালো সাপোর্ট দেবে আর এটির দাম বেশি নয় যে কেউ এটি কিনতে পারে
  • এই প্রকারের হোস্টিং এ আপনি আপনার মত করে কাস্টমাইজ করতে পারবেন এটি প্রয়োগ করার জন্য অনেক বেশি ফ্লেক্সিবেল

VPS Hosting এর অসুবিধা

  • সর্বপ্রথম এটিকে যে কেউ চালাতে পারবে না এর জন্য আপনার টেকনিকেল জ্ঞান থাকা অত্যন্ত জরুরী

 

Dedicated Hosting

এই ধরনের হোস্টিং সব থেকে ভালো কারণ আপনার ওয়েবসাইটের পুরোটা কোন সেপারেট সার্ভারে স্টোর থাকে

উদাহরণস্বরূপ: যেমন ধরুন আপনি কোন বাড়ি কিনেছেন এরপর সেই বাড়ীতে আপনার পুরো কন্ট্রোল থাকে ঠিক সেই রকম Dedicated Hosting এখানে কোন একটি সার্ভারে আপনার পুরো ব্লগ বা ওয়েবসাইটের ডাটা স্টোর থাকে

যেসব ওয়েবসাইটে প্রতিদিন অনেক বেশি ট্রাফিক আছে তাদের জন্য এই হোস্টিং খুবই জরুরী কারণ এটির দাম একটু বেশি হয় এই ধরনের হোস্টিং বড় বড় ই-কমার্স ওয়েবসাইট যেমন ফ্লিপকার্ট, অ্যামাজন স্নাপডিল ব্যবহার করেন

Dedicated Hosting এর সুবিধা

  • সবথেকে বেশি সিকিউরিটি, সাপোর্ট, প্রাইভেসি এই হোস্টিং প্লানে দেওয়া হয়
  • এই ধরনের হোস্টিং এ ক্লায়েন্ট অর্থাৎ যে ব্লগ বা ওয়েবসাইটকে মেনটেন করে তার কাছে এটির পুরো কন্ট্রোল থাকে
  • এই প্রকার আপনাকে এই চিন্তাটি করার প্রয়োজন হবে না যে যদি আপনার ব্লগের ট্রাফিক বেশি হয় তাহলে আপনার ব্লগের লোডিং টাইম বেড়ে যাবে নাতো

Dedicated Hosting এর অসুবিধা

  • এই ধরনের হোস্টিং এর দাম বেশি হয়
  • এখানে আপনার টেকনিক্যাল জ্ঞান থাকা অত্যন্ত জরুরী

 

Cloud Web Hosting

Cloud Web Hosting এ আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের ডাটা কোন একটি সার্ভারে স্টোর থাকে না বরং যে কোম্পানি যেখান থেকে তাদের হোস্টিং নিয়েছে তাদের কাছে অনেক সার্ভার থাকে সেখানে আপনার ব্লগের ডাটা সেভ থাকে

অর্থাৎ বাকি পশ্চিমে আপনার ব্লগের ডাটা কোন একটি সার্ভার অথবা অনেক বড় সার্ভারের ছোট ভাগে স্টোর থাকে

আর Cloud Web Hosting এ আপনার অনেক রকমের সার্ভারে স্টোর থাকে আর যখন কোন ইউজার আপনার ব্লগকে ইন্টারনেটে সার্চ করে তখন তাদের কাছাকাছি সার্ভার থেকে আপনার ব্লগের ইনফর্মেশন শেয়ার করা হয়

এইজন্য Cloud Web Hosting অনেক বেশি দ্রুত মনে করা হয়

Cloud Web Hosting এর সুবিধা

  • Cloud Web Hosting এ সার্ভার ডাউন হওয়ার খুবই কম সম্ভাবনা থাকে কারণ আপনার ব্লগ অনেক সার্ভারে হোস্ট থাকে
  • যদি আপনার ব্লগে হাই ট্রাফিক থাকে তাহলে Cloud Web Hosting আপনার ব্লগকে খুব সহজেই হ্যান্ডেল করে নিতে পারবে

Cloud Web Hosting এর অসুবিধা

  • যদি আমরা Cloud Web Hosting এর একটি draw back এর কথা বলি তাহলে সেটি হবে যে এটি অনেক বেশি দামি

 

ওয়েব হোস্টিং কিভাবে কাজ করে?

আজকের সময়ে বিভিন্ন ধরনের কোম্পানি আছে যারা আপনার ওয়েবসাইটের ডাটাকে তাদের সার্ভারের স্টোর করার সুবিধা দেয় যার বদনে তারা আপনার পাশ থেকে প্লান এর হিসেবে মাসিক বা বছরে টাকা নিবে

ওয়েবসাইটের পুরো ডাটা অর্থাৎ টেক্সট, ইমেজ, ভিডিও ইত্যাদি সার্ভারে আপলোড করার পর সে গুলোকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে যে কেউ যেকোনো জায়গায় ওয়েব অ্যাড্রেস অর্থাৎ ডোমেইন নেম দিয়ে দেখতে পারবে

এরপর জানবো ওয়েব হোস্টিং কিভাবে কাজ করে – যখনই কোন ইউজার তাদের ওয়েব ব্রাউজারে ওয়েব এড্রেস দিয়ে আপনার ওয়েবসাইট পর্যন্ত আছে তখন সেই ইউজারের কম্পিউটার আপনার ফ্রি হোস্টিং সার্ভারে যেখান থেকে আপনি ওয়েব হোস্টিং নিয়েছেন সেখানে কানেক্ট হয়ে যায় এবার সেই সার্ভার আপনার যত ডাটা স্টোর আছে সেগুলো কে সেই ইউজারের কম্পিউটার সিস্টেমে ডিসপ্লে করে দেয় এর জন্য প্রয়োজনীয় হল ইউজার আর সার্ভার দুজনের কাছেই ইন্টারনেট সুবিধা থাকতে হবে

 

ডোমেইন নেম আর ওয়েব হোস্টিং এর মধ্যে পার্থক্য কি?

ডোমেইন নেম আর ওয়েব হোস্টিং দুটোই আলাদা আলাদা জিনিস এটি বুঝে নেওয়া অত্যন্ত জরুরী আর একটি প্রফেশনাল ব্লগ বা ওয়েবসাইট বানানোর জন্য দুটোই আপনার প্রয়োজন হবে

যদিও এখন বেশিরভাগ সমস্ত কোম্পানি ডোমেইন আর হোস্টিং দুটোই দেয় যেমন Godaddy, Bluehost ইত্যাদি

সহজ ভাষায় বললে – ধরে নিন আপনার একটি দোকান আছে তাহলে আপনার দোকানের যেটা এড্রেস হবে সেটা হল একটি ডোমেইন নেম

আর আপনার দোকানের জিনিস যে জায়গায় রাখা হবে সেই জায়গা কে ওয়েব হোস্টিং বলা হয়

সব মিলিয়ে আপনার ওয়েবসাইটের এড্রেস হলো ডোমেইন নেম আর যেখানে আপনার ওয়েবসাইটের ডাটা স্টোর থাকবে সেটাকে বলা হয় ওয়েব হোস্টিং

 

ওয়েব হোস্টিং কেনার আগে আপনাকে এই জিনিসগুলো খেয়াল রাখতে হবে?

অনেক নতুন ব্লগার ওয়েব হোস্টিং কেনার আগে বেশি কিছু ভাবে না যার ফলে পরে তাদের অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় এই জন্য ওয়েব হোস্টিং buy করার আগে নিচে দেওয়া কথাগুলো আপনাকে অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে

Cost আর Customer Support

সবার আগে আপনাকে এটি দেখতে হবে যে ওয়েব হোস্টিং আপনার বাজেটের মধ্যে আছে কিনা ভিডিওটি দেখতে হবে যে কোম্পানি Web Hosting provide করছে তাদের customer support কেমন দ্রুত response দিচ্ছে কিনা এটি খুবই জরুরী

Back-up/Security

সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ কথাটি হলো যেটি ওয়েব হোস্টিং buy করার সময় আপনাকে একটি কথা অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যে তাদের ব্যাকআপ আর সিকিউরিটি ফিচার কেমন এই দুটো জিনিস যেকোনো ব্লগের জন্য অত্যন্ত জরুরী এইজন্য এগুলোকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হয়

কারণ অনেক সময় আপনার ব্লগের ডাটা আপনাকে ট্রানস্ফার করতে হয় অথবা ভুল করে কোন কিছু ডিলিট হয়ে যায় পাই আপনার Web Hosting এ ব্যাকআপ প্ল্যান আছে কিনা এটা আপনাকে অবশ্যই দেখতে হবে

আর আজকাল অনলাইনে অনেক কিছু খারাপ জিনিস আছে যেখানে আপনার ব্লগের সিকিউরিটির প্রশ্ন আসে তো সেই ক্ষেত্রে আপনার Web Hosting এর ওপর উপর ডিপেন্ড করে যে সে আপনাকে কেমন সিকিউরিটি প্রোভাইড করছে

Uptime এবং Downtime

Uptime এবং Downtime খুবই জরুরী term যদি আপনাকে hosting buy করার সময় খেয়াল রাখতে হবে কারণ যখন কোন ইউজার আপনার ওয়েবসাইটে যাবে তখন সে আপনার ব্লগ পোষ্ট যত তাড়াতাড়ি দেখবে ততো তাড়াতাড়ি সে আপনার সাথে engage হতে চাইবে

Reviews এবং Rating

অনেক মানুষ আজকাল কিছু অনলাইন কেনার সময় তাদের রিভিউ আর রেটিং অবশ্যই দেখে তাই আপনার অনেক আর্টিকেল বা ভিডিও অথবা কাস্টমার রিভিউ অবশ্যই দেখা উচিত সেই কোম্পানির যে আপনাকে ওয়েব হোস্টিং প্রোভাইড করছে

SSL আর Domain

অনেক ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি আছে যারা ফ্রিতে SSL সার্টিফিকেট আর ফ্রি Domain দেয় তো সেই ক্ষেত্রে এটি আপনার জন্য অনেক সস্তা হতে পারে যেমন ধরুন bluehost এর manged wordpress hosting

 

আমার শেষ কথা

আশা করছি বন্ধুরা আমার এই পোষ্টটি পড়ার পর আপনারা ওয়েব হোস্টিং কি এটি আর সাথে এটি কত প্রকারের হয় আর এটি কিভাবে কাজ করে এই সব তথ্য আপনারা বিস্তারে জেনে গিয়েছেন

বন্ধুরা আজকের এই আর্টিকেলটি পড়ার পর যদি আপনাদের কোন মন্তব্য থাকে তাহলে আপনারা নিচে দেওয়া কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাবেন আমি আপনাদের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব আর যদি আপনারা এই পোষ্টটি পড়ে মনে করেন আরো কিছু তথ্য এই পোস্টটিতে হওয়া উচিত ছিল তাহলে সেটাও আপনারা কমেন্ট করে জানাতে পারেন

আর যদি আপনারা ব্লগিং আর ইন্টারনেট সম্বন্ধিত এই ধরনের সাহায্য করে তথ্য পেতে চান তাহলে আমাদের ফেসবুক পেজটি কে লাইক আর এই ব্লগ কে সাবস্ক্রাইব করে নিন আর আজকের এই আর্টিকেলটি পড়ার পর যদি আপনারা কোন ধরনের তথ্য পেয়ে থাকেন তাহলে আপনারা এই পোস্টটিকে আপনাদের সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন ধন্যবাদ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Scroll to Top
Copy link