কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করা যায়? (অনলাইনে টাকা উপার্জন)

ইউটিউব থেকে টাকা আয়: হ‍্যালো বন্ধুরা, আপনাদের সবাইকে স্বাগতম। আজ আমি আপনাদের বলবো আপনারা ঘরে বসে কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করা যায়। তাও আবার সম্পূর্ণ ফ্রিতে। আজকের সময়ে প্রত‍্যেকেই ঘরে বসে টাকা আয় করতে চায় আর ইউটিউব আমাদের সবার জন্য টাকা আয় করার একটি খুবই ভালো প্লাটফর্ম।

কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করা যায়? (অনলাইনে টাকা উপার্জন)

বন্ধুরা যদি অনলাইন প্লাটফর্ম এর কথা বলি তাহলে অনেক প্লাটফর্ম উপলব্ধ রয়েছে, যার সাহায্যে আপনারা ঘরে বসে টাকা আয় করতে পারবেন। যেমন ব্লগিং, অ‍্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, ফ্রিল্যান্সিং ইত্যাদি। অনলাইন টাকা আয় করার সবথেকে জনপ্রিয় প্লাটফর্ম হলো ইউটিউব আর ব্লগিং। আর আমি আপনাদের আগেই ব্লগ থেকে টাকা আয় করার তথ্য প্রদান করে দিয়েছি।

আপনারা আপনাদের ফোন বা কম্পিউটারের সাহায্যে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। এটি খুবই সহজ আর ভারতবর্ষের সাথে সাথে পুরো পৃথিবীর মানুষেরা ইউটিউব থেকে মাসে লক্ষ্য টাকা আয় করছেন। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করা যায়?

 

ইউটিউব কি?

বন্ধুরা ইউটিউব এক ধরনের ভিডিও প্লাটফর্ম যেখানে প্রতিটি ব্যক্তি ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে তাদের ভিডিও আপলোড করতে পারে। সবথেকে ভালো কথাটি এই যে ইউটিউব সম্পূর্ণ একটি প্ল্যাটফর্ম আর সাথে আমরা যেকোনো ধরনের তথ্য ইউটিউব থেকে পেয়ে যায়।

এটি গুগলের একটি প্রোডাক্ট। এটি পৃথিবীর সর্বত্রই জনপ্রিয়। যদি আপনি কোন ফিল্ডে ভাল হোন আর যদি আপনার সেই ফিল্ডে ভালো জ্ঞান থেকে থাকে তাহলে আপনি আপনার তথ্য ইউটিউব এর সাহায্যে মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে পারেন আর তাদের সাহায্য করতে পারেন।

ইউটিউবকে আপনারা গুগল বলতে পারেন কারণ এখানে আপনারা সব ধরনের তথ্য খুব সহজে পেয়ে যাবেন। যদিও আপনারা ইউটিউবে ভিডিও কনটেন্ট পাবেন আর গুগলে টেক্সট কনটেন্ট পাবেন। যদিও আজকের সময়ে প্রতিটি ব্যক্তি ভিডিও এর মাধ্যমে যে কোন তথ্য বুজতে বেশি পছন্দ করে।

কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করা যায়?

ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার জন্য একমাত্র মাধ্যম হলো “আপনাদের ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও আপলোড করা”

হ্যাঁ, আপনারা একদম ঠিক শুনেছেন নিজের ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে সেই চ্যানেলে ভিডিও আপলোড করে আপনারা টাকা আয় করতে পারবেন। তবে আপনারা শুধু মাত্র এক দুই টাকা নয় মানুষেরা ইউটিউবে হাজার হাজার এবং লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছেন প্রতিমাসে।

ইউটিউব এমনই একটি ওয়েবসাইট যেখানে আপনারা সব ধরনের ভিডিও পেয়ে যাবেন। যদি আপনারা কোন কিছু শিখতে চান তাহলে টিউটোরিয়াল ভিডিও, যদি আপনারা সময় কাটাতে চান তাহলে বিভিন্ন ধরনের মজার ভিডিও এবং আরো অন্যান্য সব ধরনের ভিডিও আপনারা এখানেই পেয়ে যাবেন। 

কিন্তু সব থেকে বড় কথা হল ইউটিউব ওয়েবসাইটে এই ভিডিওগুলো কারা আপলোড করে? কোথা থেকে এই লক্ষ লক্ষ ভিডিও ইউটিউবে আসে? এর উত্তর হলো আপনারা আমাদের মত কিছু মানুষেরা ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে। এই জন্য আমরা লক্ষ লক্ষ ভিডিও ইউটিউব ওয়েবসাইটে দেখতে পাই।

এবার আসল কথা হলো মানুষেরা তাদের সময় নষ্ট করে কেন ভিডিও বানিয়ে ইউটিউবে আপলোড করে? এতে তাদের লাভ কি হয়? হয়তো আপনারা এই কথাটি ভাবছেন।

দেখুন যারা নিজেদের ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে ভিডিও আপলোড করছে, তারা এমনি এমনি তাদের সময় নষ্ট করছে না। তারা তাদের ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা প্রতিটি ভিডিও থেকে টাকা ইনকাম করে।

আসলে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার এমন একটি প্রক্রিয়া রয়েছে যেটিকে আমরা “Monetization” বলে থাকি। এই Monetization প্রক্রিয়াটি চালু করার পরে আপনারা আপনাদের আপলোড করা প্রতিটি ভিডিও থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

আসলে Monetization প্রক্রিয়াটি চালু করার পর আপনাদের আপলোড করা ভিডিওতে ইউটিউব এবং গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে কিছু বিজ্ঞাপন আপনার ভিডিওতে দেখানো হয়। এই বিজ্ঞাপনগুলি আপনার ভিডিও শুরু হবার আগে দেখানো হয়। এছাড়া বর্তমানে ভিডিওর মাঝে মাঝে ও বিজ্ঞাপন দেখানো হয়। আর মানুষেরা যতবার আপনাদের ভিডিও দেখবে ততবার তারা ওই বিজ্ঞাপনও দেখবে সেই হিসেবে আপনাদের গুগল এডসেন্স একাউন্টে টাকা জমা হতে থাকবে।

আর আপনারা আপনাদের ইউটিউব ভিডিও থেকে আয় করা টাকা গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে আপনাদের ব্যাংক একাউন্টে নিতে পারবেন।

Note:- গুগল এডসেন্স হলো গুগোল এবং ইউটিউব এর একটি অংশ। গুগল এডসেন্স ব্লগার এবং ইউটিউবারদের তাদের নিজস্ব ব্লগ বা ইউটিউব ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেখে টাকা আয় করার সুযোগ দেয়। বর্তমানে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে মানুষের এত টাকা আয় করছেন যে আপনারা কল্পনাও করতে পারবেন না। আপনারা ইউটিউবে Monetization চালু করে আপনাদের এডসেন্স একাউন্ট সেখান থেকে বানিয়ে নিতে পারবেন।

চলুন এবার আমরা স্টেপ বাই স্টেপ জেনে নিই ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে আমরা কিভাবে টাকা আয় করব।

 

ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার পদ্ধতি সম্পর্কে জানুন স্টেপ বাই স্টেপ

বন্ধুরা কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করা যায়? আমি আপনাদের এমন কতগুলো পদ্ধতি সম্পর্কে বলবো যেগুলোর সাহায্যে আপনারা ইউটিউব থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। আর সাথে আমি আপনাদের এটিও বলব যে আপনারা যে যে মাধ্যম ব্যবহার করবেন সেই মাধ্যমে আপনাদের কোন কোন জিনিস গুলো খেয়াল রাখতে হবে যাতে আপনাদের ভবিষ্যতে কোন ধরনের সমস্যা না হয়।

  • গুগল এডসেন্স

বন্ধুরা আপনারা আপনাদের ইউটিউব চ্যানেল কে গুগল এডসেন্স এর সাহায্যে Monetize করতে পারবেন। ঠিক সেই ভাবে যে ভাবে আপনারা আপনাদের ব্লগকে monetize করার জন্য গুগল এডসেন্স এর ব্যবহার করেন। Monetize করার পর যখন কোন ইউজার আপনাদের ভিডিওতে দেখানো অ্যাডে ক্লিক করবে তখন আপনারা গুগল অ্যাডসেন্স থেকে খুব সহজেই টাকা আয় করতে পারবেন।

আর ব্লগিং এ গুগল এডসেন্স অ্যাপ্রুভাল পাওয়ার জন্য মানুষদের অনেক মাস সময় লেগে যায়। আর অন্যদিকে ইউটিউবে গুগোল এডসেন্সে অ্যাপ্রভাল পাওয়া খুবই সহজ কাজ। সেই জন্য বেশিরভাগ মানুষ ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার জন্য গুগল এডসেন্স এর ব্যবহার করেন।

  • এফিলিয়েট মার্কেটিং

বন্ধুরা এফিলিয়েট মার্কেটিং এর ব্যবহার কিছু সময় আগে থেকে ইউটিউবে খুব দ্রুতগতিতে হচ্ছে। কারণ এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে আপনারা খুব কম সময়ে অনেক টাকা আয় করতে পারবেন। আর সাথে পৃথিবীর লক্ষ লক্ষ মানুষেরা ইউটিউব এর মাধ্যমে গুগল এডসেন্স এর থেকে বেশি এফিলিয়েট মার্কেটিং করে টাকা আয় করছেন।

বন্ধুরা শুধুমাত্র আপনাদেরকে আপনার ভিডিওতে অন্য কারো প্রডাক্ট কে প্রমোট করতে হবে বা যে কোন প্রোডাক্ট এর রিভিউ করতে হবে, আর আপনাদের ভিডিওর ডেসক্রিপশনে আপনাদেরকে সেই প্রোডাক্টের এফিলিয়েট লিংক দিয়ে দিতে হবে। যখন কোন ইউজার সেই লিংকের মাধ্যমে প্রোডাক্টটি কিনবে তখন আপনাদেরকে তার বদলে কমিশন দেওয়া হবে। এই মাধ্যমটি ব্যবহার করে আপনারা অনেক টাকা আয় করতে পারবেন।

  • Sponsored

যদি আপনাদের ইউটিউব চ্যানেলে মিলিয়ন সাবস্ক্রাইবার থাকে, আর ইউজারদের সাথে engagement ভালো থাকে তাহলে বড় বড় কোম্পানি তাদের প্রডাক্ট কে প্রমোট করার জন্য আপনার সাথে যোগাযোগ করবে। যাতে আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে তাদের প্রোডাক্ট কে প্রমোট করতে পারেন।

আপনারা সেই সমস্ত কোম্পানির কাছ থেকে প্রোডাক্ট কে প্রমোট করার জন্য আপনাদের পছন্দমত চার্জ করতে পারেন। এই মাধ্যমটি আপনারা তখনই ব্যবহার করতে পারবেন যখন আপনাদের ইউটিউব চ্যানেলটি বড় হবে আর লক্ষ লক্ষ মানুষেরা আপনার ইউটিউব চ্যানেলের সাথে জড়িত থাকবে। তাহলে আপনারা প্রতিদিন Sponsored ভিডিও আর প্রমোট করার জন্য ম্যাসেজ পাবেন।

 

ইউটিউব থেকে কত টাকা আয় করা যায়?

ইউটিউব থেকে টাকা আয় আপনারা তখনই করতে পারবেন। যখন আপনাদের চ্যানেলটি monetize হয়ে যাবে তখন আপনাদের ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেখানো হবে। তারপর আপনারা আপনাদের ভিডিওর মাধ্যমে আয় করার সুযোগ পাবেন।

আপনারা ইউটিউব চ্যানেল বানিয়ে সেই ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও আপলোড করে কত টাকা আয় করতে পারবেন? আপনারা কি এত টাকা আয় করতে পারবেন যে আপনাদের অন্য কোন কাজ বা চাকরি করার প্রয়োজন হবে না?

দেখুন ইউটিউব থেকে আপনি কত টাকা আয় করতে পারবেন এর সরাসরি উত্তর আপনাদের কেউ দিতে পারবে না। কিন্তু হ্যাঁ, বেশিরভাগ মানুষেরা ১০০০ ভিউতে দুই থেকে তিন ডলার অব্দি পেয়ে যায় অর্থাৎ যদি আপনার ভিডিওটি ১০০০ জন মানুষেরা দেখে তাহলে আপনার ভিডিওতে দেখানো বিজ্ঞাপনের দ্বারা আপনারা দুই থেকে তিন ডলার আয় করতে পারবেন।

এবার আপনারা ভেবে দেখুন যদি আপনাদের ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা ভিডিওতে প্রতিদিন মোট ৫০০০ ভিউ হয়, তাহলে আপনারা প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ ডলার বা তার থেকেও বেশি আয় করতে পারবেন। আর যদি আপনাদের এরকম ইনকাম হয় তাহলে আমি মনে করি আপনাদের আর অন্য কোন চাকরি বা কাজ করার প্রয়োজন হবে না।

বর্তমানে ইউটিউব থেকে মানুষেরা লক্ষ্য টাকা আয় করছেন। আপনারাও করতে পারবেন কিন্তু এর জন্য কিছু সময় লাগবে। আপনারা লক্ষ টাকা আয় না করতে পারলেও ভালো পরিমাণে ইউটিউব চ্যানেল দ্বারা আয় করতে পারবেন। শুধুমাত্র আপনাদের ইউটিউব চ্যানেলে ভালো ভালো ভিডিও বানিয়ে আপলোড করতে হবে। এর ফলে আপনার ভিডিওতে আস্তে আস্তে ভিউয়ার বাড়বে এবং ইউটিউব সার্চ এ আপনার ভিডিও ভালোভাবে ডিসপ্লে হতে থাকবে।

যখন আপনারা ৪০ থেকে ৫০ টি ভালো ভালো এবং আপনাদের নিজস্ব বানানো মূল্যবান ভিডিও আপনাদের ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করে ফেলবেন, তখন আপনারা অনলাইন থেকে ভালো টাকা আয় করতে পারবেন।

সহজ ভাষায় বললে, আপনাদের চ্যানেলের ভিডিওতে যদি প্রতিদিন হাজার থেকে ১৫০০ ভিউ হয় তাহলে আপনারা প্রতিদিন ২ থেকে ৩ ডলার ইনকাম করতে পারবেন। অর্থাৎ প্রতিদিন দেড়শ থেকে দুইশ টাকা আয় করতে পারবেন। আর যদি আপনাদের ভিডিওতে প্রতিদিন ৫০০০ থেকে ৬০০০ ভিউ হয়, তাহলে আপনারা ১০ থেকে ১৫ ডলার অর্থাৎ প্রতিদিন ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা অব্দি আয় করতে পারবেন।

এই টাকা আয়ের তালিকাটি আমি আপনাদের বিভিন্ন ইউটিউবারদের ইনকাম দেখে আপনাদের বলছি। এইজন্য আপনাদের আয় এর পরিমাণ আমার বলা মতে নাও হতে পারে। গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে টাকা আয় করাটা অনেক কিছু জিনিসের উপর নির্ভর করে। সেই সমস্ত জিনিস গুলোর মধ্যে “CPC”, “CTR” এগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই জন্য আপনাদের আয়ের পরিমাণটা আমার বলার থেকে কম বা বেশি হতে পারে।

আমার শেষ কথা

আশা করছি আমি আপনাদের সবাইকে কিভাবে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করবেন এই বিষয়ে সম্পূর্ণ তথ্য প্রদান করতে পেরেছি। আর আমি আশা করছি আপনারা ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার বিষয়ে বুঝে গিয়েছেন। আমার সমস্ত পাঠক ভাইদের কাছে অনুরোধ আপনারা এই পোস্টটিকে আপনাদের বন্ধুবান্ধব আত্মীয়স্বজন এবং আপনাদের সোশ্যাল মিডিয়াতে অবশ্যই। শেয়ার করুন যাতে নতুন ইউটিউবার ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার বিষয়ে জানতে পারে

বর্তমানে অনেক মানুষেরা ইউটিউব এর মাধ্যমে ভালো টাকা আয় করছেন। আপনারাও ইউটিউব এর সাহায্যে আমার বলা মাধ্যম গুলো ব্যবহার করে অনেক বেশি টাকা আয় করতে পারবেন। আজকের সময়ে ইউটিউব একটি খুবই ভালো প্ল্যাটফর্ম হয়ে গিয়েছে অনলাইন ঘরে বসে টাকা আয় করার জন্য।

বন্ধুরা আমি আমার এই ব্লগে ব্লগিং, টেকনলজি আর অনলাইন ইনকাম সম্বন্ধিত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করে থাকি। যেগুলোর সাহায্যে আপনারা ঘরে বসে অনলাইনে টাকা আয় করতে পারবেন। বর্তমানে অনেক মানুষ করছেন আর আপনারাও করতে পারবেন।

বন্ধুরা আজকের এই পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Scroll to Top
Copy link