কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন? ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম 2021

ইউটিউব গুগলের একটি নিজস্ব ভিডিও নেটওয়ার্ক। এখানে প্রায় এক বিলিয়নেরও বেশি ইউজার যুক্ত রয়েছেন। তাই বলা যেতে পারে পুরো বিশ্বের প্রায় এক তৃতীয়াংশ মানুষ। এর থেকেই বোঝা যায় ইউটিউব কত বেশি জনপ্রিয়। হয়তো আপনাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন যাদের মনে এই প্রশ্নই ঘুরপাক খায় আসলে কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন।

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন? ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম 2021

যদি আপনিও তাদের মধ্যে একজন হন আর আপনি সঠিক তথ্যের সন্ধানে রয়েছেন আপনার প্রথম ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করার জন্য। তাহলে আপনার চিন্তা করবার কোন প্রয়োজন নেই কারণ আজ আমরা এই বিষয়ে বিস্তারিতভাবে এই পোষ্টের মাধ্যমে আলোচনা করব।

ইউটিউব প্রায় ৯১ টি দেশে আর প্রায় ৮০ টি ভাষায় উপলব্ধ রয়েছে। এটি শুধুমাত্র একটি ভিডিও প্লাটফর্ম নয় বরং এটি আমাদের দৈনন্দিন জীবনের একটি অংশ হিসেবে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিন প্রায় পাঁচ বিলিয়ন ইউটিউব ভিডিও সারা বিশ্বে দেখা হয়। সুতরাং এমন পরিস্থিতিতে যদি আপনারা আপনাদের প্রতিভাকে মানুষের কাছে পৌছে দিতে চান তাহলে আপনাদের অবশ্যই নিজের জন্য একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে হবে। 

তাহলে চলুন সময় নষ্ট না করে জেনে নেওয়া যাক, আপনি কিভাবে আপনার ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন? অবশ্যই আপনারা এই আর্টিকেলের মাধ্যমে ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম সম্বন্ধে বিস্তারিত ভাবে জেনে নিতে পারবেন।

 

ইউটিউব কি?

ইউটিউব একপ্রকারের ফ্রি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট। যেখানে আপনারা খুব সহজেই অনলাইন ভিডিও দেখতে পারেন আর যদি আপনারা চান তাহলে আপনারা ভিডিও আপলোডও করতে পারবেন। ইউটিউব কে লঞ্চ করা হয়েছিল ২০০৫ সালে আর আজকের সময়ে ইউটিউব সবথেকে জনপ্রিয় ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে একটি। এখানে প্রায় ৬ বিলিয়ন ঘণ্টারও বেশি ভিডিও ভিজিটররা প্রতিমাসে দেখে।

এটি এমন একটি ভিডিও শেয়ারিং সার্ভিস যেখানে ইউজাররা খুব সহজেই ভিডিও দেখতে, লাইক করতে, শেয়ার করতে, কমেন্ট করতে এবং তাদের ভিডিও আপলোড পর্যন্ত করতে পারে। এই ভিডিও সার্ভিসটি কম্পিউটার, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট এবং মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অ্যাক্সেস করা যায়।

ইউটিউব চ্যানেল কি?

ইউটিউবে থাকা সমস্ত ভিডিও কোনো না কোনো চ্যানেল দ্বারা আপলোড করা হয়, সেই সমস্ত চ্যানেলকে ইউটিউব চ্যানেল বলা হয়। আর সেই সমস্ত চ্যানেলে যে সমস্ত মানুষেরা ভিডিও আপলোড করে তাদের ইউটিউবার বলা হয়। আর ইউটিউবে চ্যানেল বানানো সম্পূর্ণ ফ্রি।

 

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন?

যদি আপনারা জানতে আগ্রহী হন কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন তাহলে আপনাদেরকে সমস্ত স্টেপ গুলো মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে।

ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করার জন্য আপনাদেরকে আলাদা একাউন্ট বানানোর প্রয়োজন নেই। যদি আপনাদের কাছে প্রথম থেকে কোন গুগোল একাউন্ট অর্থাৎ জিমেইল একাউন্ট থেকে থাকে তাহলে আপনারা সেই একাউন্টের ব্যবহার করে ইউটিউবে সাইন ইন করতে পারবেন। সেই জিমেইল আইডির সাহায্যে ইউটিউবে চ্যানেল বানাতে পারবেন।

ধরে নিচ্ছি আপনাদের কাছে প্রথম থেকে কোন জিমেইল আইডি রয়েছে, তাহলে আপনাদেরকে নিচে দেওয়া স্টেপগুলো ভালোভাবে ফলো করতে হবে।

স্টেপ ১. ইউটিউব এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন

আপনাকে আপনার কম্পিউটার বা মোবাইল ফোনে যেকোন ব্রাউজারে ইউটিউব এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট www.youtube.com সার্চ করতে হবে আর সেটিকে ওপেন করতে হবে।

স্টেপ ২. একাউন্টে লগইন করুন

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন? ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম 2021

একবার আপনার ডিভাইসে ইউটিউব এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটটি ওপেন হয়ে যাবার পর আপনারা উপরের দিকে “Sign In” এর বাটন দেখতে পাবেন। সেটিতে ক্লিক করুন। সেখানে আপনাদেরকে আপনার জিমেইল আইডি দিয়ে লগইন করতে হবে পরবর্তী এক্সেস পাবার জন্য।

স্টেপ ৩. আপনার চ্যানেলে ক্লিক করুন 

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন? ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম 2021

একবার লগইন হয়ে যাবার পর আপনাদের ডানদিকে আপনার জি-মেইল একাউন্টে দেওয়া প্রোফাইল ফটো দেখতে পাবেন। সেই আইকনে আপনাদের ক্লিক করতে হবে। ক্লিক করার পর আপনারা বিভিন্ন অপশন দেখতে পাবেন।

সেখানে আপনাদের “Create a channel” অপশনটি বেছে নিতে হবে আর ওই অপশনটিতে ক্লিক করতে হবে।

স্টেপ ৪. চ্যানেলের নাম নির্বাচন করুন

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন? ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম 2021

এরপর আপনাদের সামনে Your creator journey begins এর নামে একটি পেজ খুলে যাবে। সেখানে আপনাদের GET STARTED বাটনে ক্লিক করতে হবে।

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন? ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম 2021

এরপর পরবর্তী পেজে আপনারা “Use your name” আর “Use a custom name” দুটো অপশন দেখতে পাবেন। যদি আপনারা আপনাদের নামে চ্যানেল বানাতে চান তাহলে প্রথম অপশনটি বেছে নিন আর যদি আপনারা আপনাদের ব্র্যান্ডের নামে চ্যানেল বানাতে চান তাহলে দ্বিতীয় অপশনটি বেছে নিন।

মনে রাখবেন

  • অবশ্যই খেয়াল রাখবেন এমন নামকরণ করা উচিত যেটি সহজে মনে রাখা যায়।
  • Channel Name যত ছোট হবে ততো ভালো।
  • চ্যানেলের নাম অবশ্যই ইউনিক আর নতুন হওয়া উচিত। 
  • আপনারা আপনাদের চ্যানেলে যে ধরনের কনটেন্ট আপলোড করবেন, সেই সম্বন্ধিত চ্যানেলের নাম দিলে সবথেকে ভালো হবে। 

স্টেপ ৫. আপনার প্রোফাইল পিকচার সেট করুন

ইউটিউব চ্যানেলের নাম আর ব্র্যান্ড সেট করার পর আপনারা নিচে “Create” বাটন দেখতে পাবেন, সেটিতে ক্লিক করুন। ক্লিক করার পর আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি সম্পূর্ণভাবে তৈরি হয়ে যাবে। এরপর আপনারা আপনাদের পছন্দমত প্রোফাইল পিকচার সেট করতে পারেন।

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন? ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম 2021

এর সাথে আপনারা চ্যানেল ডেসক্রিপশন, ওয়েবসাইট লিংক, আর সোশ্যাল প্রোফাইল লিংক দিতে হবে। এইসব কিছু করার পর SAVE AND CONTINUE বাটনে ক্লিক করুন।

স্টেপ ৬. আপনার চ্যানেলটি কাস্টমাইজ করুন

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন? ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম 2021

যদি আপনারা আপনাদের চ্যানেলটি আরো আকর্ষিত বানাতে চান তাহলে আপনাদেরকে “Customize Channel” অপশনটিতে ক্লিক করতে হবে। এখানে আপনারা বিভিন্ন ধরনের অপশন পেয়ে যাবেন। যেগুলো ব্যবহার করে আপনারা অনেক বেশি কাস্টমাইজ করতে পারবেন আপনাদের প্রয়োজন অনুসারে।

 

কিভাবে প্রফেশনাল ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন?

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন? ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম 2021

এবার আপনারা জেনে গিয়েছেন কিভাবে আপনারা আপনাদের জন্য ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন। কিন্তু যদি আপনারা আপনাদের ইউটিউব চ্যানেলটিকে প্রফেশনাল বানাতে চান তাহলে আপনাদের আরো কিছু জিনিসের প্রতি বিশেষভাবে খেয়াল রাখতে হবে।

  • ইউটিউব চ্যানেলের লোগো

আপনার চ্যানেলের নাম অনুসারে আপনাকে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের জন্য একটি খুবই ভালো লোগো বানাতে হবে। যদি আপনারা লোগো তৈরী করতে না জানেন তাহলে আপনারা ইন্টারনেটে এই বিষয়ে সার্চ করতে পারেন। এমন অনেক অ্যাপ্লিকেশন উপলব্ধ রয়েছে যেগুলো আপনাদের লোগো বানানোর জন্য সাহায্য করবে।

  • ইউটিউব চ্যানেল আর্ট

ভিউয়াররা সর্বপ্রথম আপনার চ্যানেলের চ্যানেল আর্ট দেখে। তাই আপনার ইউটিউব চ্যানেলের জন্য চ্যানেল আর্ট ডিজাইনটি খুব ভালোভাবে করুন। চ্যানেল আর্ট এর সাইজ 2560px x 1440px রাখুন। এতে এটি সুন্দর দেখায় এর জন্য আপনারা কিছু ফ্রী অ্যাপ্লিকেশন বা সফটওয়্যার এর ব্যবহার করতে পারেন।

  • ইউটিউব চ্যানেলের ইন্ট্রো

আপনারা অবশ্যই দেখে থাকবেন সমস্ত প্রফেশনাল চ্যানেলে চ্যানেল ইন্ট্রো দেওয়া থাকে। চ্যানেল ইন্ট্রোতে চ্যানেলের লোগো আর নাম দুটোই থাকা উচিত। তবে এটি যেন খুব বেশি বড় না হয় আর মিউজিক যেন হালকা হয়।

  • ইউটিউব চ্যানেলের About Section

যেমন ব্লগের About Section খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ ঠিক তেমনি ইউটিউব চ্যানেলের ক্ষেত্রেও About Section এর থাকা খুবই জরুরী। এখানে আপনারা আপনাদের চ্যানেল সম্বন্ধে, কোন ধরনের ভিডিও আপলোড করেন আর সাথে আপনাদের বিষয়ে কিছু তথ্য প্রদান করতে পারেন।

  • Links

আপনাদের চ্যানেলে আপনার সোশ্যাল মিডিয়া যেমন ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, টুইটার, ওয়েবসাইট ইত্যাদি এর লিংক অবশ্যই দিন। এতে মানুষেরা ইউটিউব এর সাথে সাথে অন্য সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে আপনাকে ফলো করবে।

  • ইউটিউব প্লেলিস্ট

আপনাদের ভিডিওগুলো কে categorize করার জন্য আপনারা আপনাদের চ্যানেলে প্লেলিস্ট বানাতে পারেন। এতে ভিউয়ারদের আপনার চ্যানেলে মাইগ্রেট করতে সহজ হবে। আর টিউটোরিয়াল সিরিজে প্লেলিস্ট থাকা খুবই আবশ্যক। 

 

মোবাইল থেকে কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন?

যদি আপনারা আপনাদের মোবাইল থেকে ইউটিউব চ্যানেল বানাতে চান তাহলে এর জন্য আপনাদেরকে উপরের দেওয়া সমস্ত স্টেপ গুলো সঠিকভাবে ফলো করতে হবে। কিন্তু এর জন্য আপনাদেরকে আপনার মোবাইলের যেকোনো ব্রাউজার কে ওপেন করতে হবে। বাকি সমস্ত প্রক্রিয়া একই।

 

কিভাবে ইউটিউব ভিডিওর SEO করবেন?

চলুন এবার এমন কয়েকটি টিপস সম্বন্ধে জেনে নিই, যেগুলো ইউটিউব ভিডিওর SEO করতে আপনাকে অনেক বেশী সাহায্য করবে।

ভিডিওর টাইটেলটি দুর্দান্ত হওয়া উচিত: কারণ এটি ভিউয়ারদের প্রথম নজরে আসে। এই জন্য যদি আপনার ভিডিওর টাইটেল আকর্ষণীয় না হয় তাহলে হয়তো কেউ আপনার ভিডিওটি দেখার চেষ্টাও করবে না।

Thumbnail আকর্ষণীয় করুন: Thumbnail থেকে বোঝা যায় ভিডিওর মধ্যে কোন ধরনের কনটেন্ট রয়েছে। এই জন্য Thumbnail এ বেশি clickbait করবেন না, আর কনটেন্টের সম্বন্ধিত এটিকে বানান। আর Thumbnail এর রং সঠিকভাবে চয়ন করতে হবে, যাতে লোকেদের এটি আকর্ষণীয় মনে হয়।

Focus কিওয়ার্ড এর ব্যবহার করুন: আপনার ভিডিওতে Focus কিওয়ার্ড এর ব্যবহার একাধিকবার করা উচিত। আর অন্য কিওয়ার্ড গুলো 1 থেকে 2 বার ব্যবহার করা উচিত।

আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগের URL ডেসক্রিপশনে এড করুন: মনে করে আপনাদেরকে ভিডিও ডেসক্রিপশনে আপনার আর্টিকেল এর URL দিতে হবে, যাতে মানুষেরা আপনার ওয়েবসাইটের সম্বন্ধে জানতে পারে।

যখন আপনারা এই সমস্ত জিনিস গুলো করে নিবেন তখন আপনাদেরকে “Publish” বাটনে ক্লিক করতে হবে। আপনার ভিডিওকে পাবলিশ করার জন্য।

 

আমার শেষ কথা

আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলটি কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন পড়ার পর আপনাদের খুবই ভালো লেগেছে। আমি সম্পূর্ণভাবে চেষ্টা করেছি আমার পাঠকদের কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন এই বিষয়ে সম্পূর্ণ তথ্য প্রদান করতে যাতে তাদের অন্য কোন আর্টিকেল এ যাওয়ার প্রয়োজন না হয়।

এতে তাদের সময় নষ্ট হবে না আর এক জায়গা থেকে তারা সমস্ত তথ্য পেয়ে যাবে। যদি আপনাদের এই আর্টিকেলটি সম্বন্ধিত কোন ধরনের প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে আপনারা নিচে দেওয়া কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আমি আপনাদের উত্তর দেওয়ার যথাযথ চেষ্টা করব।

আজকের এই আর্টিকেলটি কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন পড়ার পর ভালো লেগে থাকে বা যদি আপনারা কিছু শিখে থাকেন তাহলে দয়া করে এই পোস্টটিকে আপনাদের সোশ্যাল মিডিয়াতে যেমন ফেসবুক, টুইটার, আরো অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে শেয়ার করবেন। আজকের এই আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Scroll to Top
Copy link